Sunday, September 03, 2006

প্লেবয় সম্পর্কে কিছু কথা

প্লেবয় পত্রিকাটি প্রকাশনা শুরু হয় ১৯৫৩ সালে । তার পর থেকে এই পত্রিকাতে পঞ্চাশ বছরেরও বেশী সময় ধরে নগ্ন নারীদের ছবি প্রকাশিত হয়ে আসছে । বর্তমানে এটি একটি বিরাট কোম্পানি এবং ম্যাগাজিন ছাড়াও এরা ওয়েবসাইট এবং হোম ভিডিওর মাধ্যমে এরা ব্যবসা করছে ।

মূলত অল্পবয়সী অবিবাহিত পুরুষদের পছন্দের প্রতি দৃষ্টি রেখে প্লেবয়ের ম্যাগাজিন এবং ওয়েবসাইটে সুন্দরী মহিলাদের নগ্ন ছবি প্রকাশ করা হয় । তবে বিবাহিত এবং বেশী বয়সের পুরুষেরাও এর আকর্ষন এড়াতে পারেন না । সম্পূর্ণ বিবস্ত্র অবস্থায় অথবা বিবস্ত্র হবার বিভিন্ন অবস্থায় মহিলাদের ছবি তোলা হয় । মহিলাদের উন্মুক্ত স্তন, নিতম্ব এবং যোনি স্পষ্ট ভাবে দেখালেও তা হার্ডকোর পর্নো পত্রিকাগুলির মতো জোর করে দেখানো হয় না বরং স্বাভাবিক ভাবে যতটুকু দেখা যায় তাই দেখানো হয় ।

প্লেবয়ের ছবিগুলি যৌনতা এবং শিল্পের সঠিক মিশেল । নারীশরীর যে কত সুন্দর হতে পারে তা একমাত্র প্লেবয়ের ছবিগুলি দেখলেই বোঝা যায় । প্লেবয়ের অধিকাংশ মহিলারাই ক্যামেরার সামনে অত্যন্ত সাবলীল এবং আত্মবিশ্বাসী ভাবে পোজ দেন । যদিও তাঁদের মধ্যে অনেকেই প্রফেশনাল মডেল নন । মডেলদের ছবি যে ব্যাকগ্রাউন্ডে তোলা হয় তার পিছনেও বহু ভাবনা চিন্তা থাকে এবং আলোর ব্যবহার থাকে যথাযথ । প্লেবয়ের ফটোগ্রাফাররাও খুব নামী এবং সুদক্ষ । প্লেবয়ের অনেক মডেলই যখন অন্য পত্রিকা বা ওয়েবসাইটের জন্য ছবি তুলেছেন তখন তা প্লেবয়ের মতো অত সুন্দর হয় নি ।

শৈল্পিক দিক থেকে প্লেবয়ের ছবিগুলি সুন্দর হলেও যৌনতার দিকটাকেও খেয়ালে রাখা হয় । মূলত পুরুষের মনে কামনা জাগিয়ে তোলার জন্যই যে ছবিগুলি তা মডেলদের এক্সপ্রেসন এবং ভঙ্গিমা দেখলেই বোঝা যায় । যুগের সাথে সাথে প্লেবয় মডেলদের স্টাইলও পালটেছে ।

প্লেবয়ের জন্য প্রফেশনাল মডেল ছাড়াও বহু অভিনেত্রী, খেলোয়াড়, সাংবাদিক, শিক্ষিকা, ছাত্রী এবং অফিসাররা নগ্নাবস্থায় পোজ দেন । তাঁদের মধ্যে অনেকেই উচ্চশিক্ষিত অথবা ইউনিভার্সিটির ছাত্রী । বড় বড় কোম্পানি যেমন ওয়াল মার্ট এবং ম্যাকডোনাল্ডসের মহিলা কর্মচারীদের জন্য প্লেবয় নানা নগ্ন ছবির সিরিজ করেছে । বিরাট কোম্পানি এনরন যখন বন্ধ হয়ে যায় তখন প্লেবয় এনরনের বেশ কিছু মহিলা কর্মচারীদের মডেলিঙের সুযোগ দিয়েছিল । এছাড়াও প্লেবয় বহু যমজ বোনের একসাথে ছবি প্রকাশিত করেছে । প্লেবয় যে কোথা থেকে এত সুন্দরী যমজ বোন যোগাড় করে তা এক আশ্চর্যের বিষয় ।

ছবি প্রকাশনা ছাড়াও প্লেবয় তার মডেলদের নিয়ে প্রচুর হোম ভিডিও প্রকাশ করেছে । সুন্দর মিউজিকের সাথে যথাযথভাবে তোলা ভিডিওগুলি খুবই উঁচুদরের । এই ভিডিওগুলিতে নানাভাবে উলঙ্গ নারীশরীর দেখানো হয় কিন্তু কোন যৌনক্রিয়া দেখানো হয় না । ভিডিও গুলিতে অনেকসময় মডেলদের সাক্ষাৎকারের সাথে তাদের বাড়ির লোকেদের সাক্ষাৎকারও দেখানো হয় ।

আমেরিকার এক চতুর্থাংশ কলেজ ছাত্র প্লেবয় পত্রিকার গ্রাহক । পত্রিকাটিতে নগ্ন ছবি ছাড়াও নানা রকম বিষয়ের উপর লেখা প্রকাশিত হয় । অবশ্য প্লেবয়ের ওয়েবসাইটগুলিতে শুধুমাত্র ছবি এবং ভিডিও রাখা থাকে ।

প্লেবয় পত্রিকা এবং ওয়েবসাইটের ছবি এবং ভিডিওগুলি যে মূলত পুরুষদের হস্তমৈথুন করার জন্য উদ্দীপক হিসাবে ব্যবহৃত হয় সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই । এবং সেদিক লক্ষ্য রেখেই এগুলিকে তোলা এবং প্রকাশ করা হয় ।

প্লেবয় পশ্চিমি সভ্যতার প্রতীক এবং নগ্ন নারীশরীর নিয়ে ব্যবসা করে । তাই বহু দেশে প্লেবয় নিষিদ্ধ । আবার অনেক লোকের বক্তব্য যে প্লেবয় মডেলদের শরীর অনেকটাই সিন্থেটিক তাদের মধ্যে প্রকৃত সৌন্দর্য খুব কম । কিন্তু ইন্টারনেটের প্রসারের সাথে প্লেবয়েরও জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পেয়েছে ।

আরেক দিক থেকে বিচার করলে প্লেবয় নারীস্বাধীনতারও প্রতীক । কারন এখানে সব মহিলারাই স্বইচ্ছায় নিজেদের উলঙ্গ ছবি তোলেন । মেয়েদের শরীরের মালিক যে মেয়েরাই তাদের স্বামী, সমাজ অথবা ধর্ম নয় তা প্লেবয়ের জন্য পোজ দিয়ে তাঁরা প্রমান করেন । তাঁদের শরীর নিয়ে তাঁরা কি করবেন সেটা তাঁদের একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার । তাঁদের অনেকরই বক্তব্য যে তাঁদের যদি দেখাবার মতো সুন্দর শরীর থাকে তাহলে তাঁরা তা অবশ্যই দেখাবেন তাকে আজীবন ঢেকে রাখার কোন মানে হয় না ।

মজার ব্যাপার হচ্ছে নগ্ন নারীশরীর নিয়ে ব্যবসা করলেও এই কম্পানির চেয়ারপার্সন এবং চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার একজন মহিলা । তাঁর নাম ক্রিস্টি হেফনার । এই মহিলা প্লেবয় পত্রিকার স্থাপক হিউজ হেফনারের মেয়ে ।

4 comments:

Ragib said...

আপনি ব্যস্ত নাকী, উইকিপিডিয়াতে দেখি না ..., এখানে যা লিখেছেন, ওখানেও এরকম লিখে নিবন্ধটা শুরু করে দিন। হিউ হেফনার এর উপর ইতিমধ্যেই নিবন্ধ আছে।

konfusias said...

আপনার মেইল আইডি পেলে ভাল হয়। বাংলাইউনিকোড ব্লগের মেম্বার ইনভাইটেশ্অন পাঠাতে চাচ্ছি আপনাকে। যদি আপত্তি না থাকে তাহলে মেইল করুন - tareq74@ ইয়াহু ডট কম।

শুভ্র প্রকাশ পাল said...

আমারে যোগ করে দেন না। http://kherokhata.blogspot.com

Asif Ahmed said...

আকর্ষণীয় ডিজাইনের চশমা ও সানগ্লাস ঘরে বসে পেতে চাইলে ক্লিক করুন ড্রিমারস অনলাইন শপ

ফেসবুক পেজ থেকে বেছে নিন পছন্দের চশমা বা সানগ্লাস আর অর্ডার করুন ফেসবুক থেকেই। সরাসরি পৌঁছে যাবে আপনার ঠিকানায়। পন্য হাতে পেয়ে মুল্য পরিশোধ করুন।

ভিসিট করুন https://www.facebook.com/dreamersdreambd